আজ , রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২

রাউজানের হাট বাজারে সয়লাব কাঠাল, আম, আনারস, লিচু

লেখক : সাহেদুর রহমান মোরশেদ | প্রকাশ: ২০২২-০৫-১১ ০০:২৮:৫২

শফিউল আলম, রাউজানবার্তাঃ

মধু মাসে রাউজানের হাট বাজারে সয়লাব হয়ে পড়েছে কাঠাল, আম, আনারস, লিচু, গোলাপ জাম। বৈশাখ ও জৈষ্ট্য মাস মধু মাস হিসেবে পরিচিত। এই দু মাসে আম, জাম, কাঠাল, লিচু আনারস, গোলাপ জাম ফলের বাগান থেকে এনে রাউজানের বিভিন্ন হাট বাজার ও ষ্টেশনে বিক্রয় করে ফল ব্যবসায়ীরা। এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ বাজার থেকে আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম ক্রয় করে নিয়ে যায়।

এছাড়া ও আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম বাজার থেকে ক্রয় করে আত্বিয় স্বজনদের বাড়ী কণ্যার শ্বাশুড় বাড়ীতে সিএনজি অটোরিক্সা ভর্তি করে নিয়ে যায় ।

রাউজানের হাট বাজারে আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম বিক্রয় করার জন্য ফল ব্যবসায়ীরা ক্রয় করে নিয়ে আসেন, রাঙ্গামাটি জেলার বিভিন্ন এলাকার পাহাড়ী জমিতে উৎপাদিত ফলের বাগান থেকে।

প্রতিদিন ট্রাক, জীপ, সিএনজি অটোরিক্সা ভর্তি করে আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম ক্রয় করে নিয়ে আসেন রাঙ্গামাটি জেলা সদর মহালছড়ি, মানিক ছড়ি, ঘাগড়া, রাণীর হাট, সুগার মিল, বেতবুনিয়া চায়েরী বাজার, মনাইর টেক, ডিলাইট, আমতল, গোদার পাড় এলাকা থেকে। রাঙ্গামাটি জেলার মাইনী, মরিস্যা, শুভলং, হরিনা থেকে প্রতিদিন যান্ত্রিক নৌযান ভর্তি বিপুল পরিমান আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম রাঙ্গামাটি জেলা সদরে কাপ্তাই লেক দিয়ে নিয়ে আসেন ব্যবসায়ীরা ও বাগানের মালিকেরা।

রাঙ্গামাটি জেলা সদর থেকে মহালছড়ি, মানিক ছড়ি, ঘাগড়া, রাণীর হাট, সুগার মিল, বেতবুনিয়া চায়েরী বাজার, মনাইর টেক, ডিলাইট, আমতল, গোদার পাড় এলাকায় নিয়ে আসা আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম বিক্রয় করে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ও বাগানের মালিকরা ।

ঐসব এলাকা থেকে চট্টগ্রাম জেলার ও দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ফল ব্যবসায়ীরা এসে আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম ক্রয় করে ট্রাক ও জীপ, যাত্রীবাহি বাসের ছাদে, সিএনজি অটোরিক্সায় করে নিয়ে যায় । রাউজানের বিভিন্ন এলাকার হাট বাজার ও ষ্টেশনে বিক্রয় করা আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম আসে বেশীর ভাগ রাঙ্গামাটি জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ।

দেশের উত্তর বঙ্গ থেকে আসা আম ফরমালিন মিশ্রিত থাকায় ক্রেতারা বেশীর ভাগই রাঙ্গামাটি জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা আম, জাম, কাঠাল, লিচু, আনারস, গোলাপ জাম ও রাউজানের পাহাড়ী এলাকায় আম বাগানে ও কাঠাল বাগানে উৎপাদিত আম কাঠাল ক্রয় করে বেশী।

রাউজানের বিভিন্ন সড়কের পাশে ও শিক্ষা প্রতিষ্টান, পাহাড়ী এলাকায় রাউজানের সাংসদ ফজলে করিম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির আম গাছের বাগান গড়ে তোলা হয়েছে।

এবৎসর এখন ও রাউজানের পাহাড়ী এলাকায় গড়ে তোলা আম বাগানের আম পাকা শুরু হয়নি।

রাউজান উপজেলার সীমান্তবর্তী রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার বেতবুনিয়া ইউনিয়নের মনাইর টেক এলাকার বাসিন্দ্বা নুরুল আলম বলেন, তার ঘরবাড়ীর পাশে পাহাড়ী জমিতে চারশত কাঠাল গাছ রয়েছে। প্রতি বৎসর তার কাঠাল গাছের বাগান থেকে ৩ থেকে ৪ লাখ টাকার কাঠাল বিক্রয় করেন। এবৎসর তার কাঠাল গাছের বাগান থেকে এপর্যন্ত ৫০ হাজার টাকার কাঠাল বিক্রয় করেছেন। তার কাঠাল গাছের বাগান থেকে আরো ৪ লাখ টাকার কাঠাল বিক্রয় করতে পারবে বলে আশা করছেন।

রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসার ইমারন হোসাইন বলেন, রাউজানের পাহাড়ী এলাকা সহ বিভিন্ন এলাকায় দেড়শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির আম গাছের বাগান রয়েছে। রাউজানের বিভিন্ন এলাকার আম গাছের বাগান থেকে উৎপাদিত আম আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বাজারে আসবে বলে আশা করছি ।