আজ , রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২

রাউজানে ডাকাতি ঘটনায় আটক ৮ ডাকাতকে আদালতে সোর্পদ

লেখক : সাহেদুর রহমান মোরশেদ | প্রকাশ: ২০২২-১১-২৩ ১৭:৪৯:২২

শফিউল আলম, রাউজানবার্তাঃ

Rab এর অভিযানে রাউজানে প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধষ ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত র্স্বণ ব্যবসায়ী সহ ৮ ডাকাতকে আদালতে সোর্পদ করেছে রাউজান থানা পুলিশ। এর আগে Rab অভিযানে আটক ৮ ডাকাতকে রাউজান থানায় সোর্পদ করেন ।

২৩ নভেম্বর বুধবার দুপুরে ৮ ডাকাতকে রাউজান থানা পুলিশ আদালতে সোর্পদ করেন বলে জানান রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন।

গত ২১ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকাল থেকে রাউজান ও হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাউজান পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের ছত্র পাড়া এলাকার প্রবাসী মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরীর পাকা ভবনে ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত স্বর্ণ ব্যবসায়ী সহ ৮ ডাকাতকে গ্রেফতার করে Rab। ডাকাত দলের সদ্যদেও কাছ থেকে ৪৬ ভরি ওজনের স্বর্ণলংকার ও কয়েন স্বর্ণ বিক্রির ৩০ লাখ টাকা উদ্বার করেন। দুর্ধষ ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত ডাকাতেরা হলেন, মুসা,সাইদুল ইসলাম প্রকাশ সাইফুল, খোরশেদুল আলম, সাজ্জাদ হোসেন, মোঃ বাপ্পি, সজল শীল, ইদ্রিস প্রকাশ কাজল, বিপুল চন্দ্র সাহা।

গত ২৭ অক্টোবর রাউজান পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দ্বা মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরীকে একা ঘরে রেখে পাশ্ববর্তী রাউজান আদালত ভবন এলাকায় আত্বিয় বাড়িতে বিয়ের অনুষ্টানে বেড়াতে যায় পরিবারের সদস্যরা । এই সুযোগে ডাকাতদলের সদস্যরা গত ২৮ অক্টোবর দিবাগত রাতে মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরীর মালিকানাধীন পাকা ভবনে হানা দেয়। মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরীর পাকা ঘরের পিছনে লোহার জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে তার বৃদ্ধ বাবা কে কম্বল দিয়ে চেপে ধরে চোখ মুখ ও হাত পা বেধে গলায় চাকু ধরে হত্যার ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে আলমারির চাবি নিয়ে নেয়। ডাকাত দলের মধ্যে হতে মোঃ মুসা নামক একজন ব্যক্তি ভিকটিমের বাবার গলায় চাকু ধরে রাখে এবং চিৎকার করলে জবাই করে ফেলবে বলে হুমকি প্রদান করে। এসময় ডাকাত দলের অন্যান্য সদস্যরা আলমারীতে রক্ষিত অবস্থায় থাকা ভিকটিমের স্ত্রী, মা, বোনের স্বর্ণালংকার এবং অপরাপর আত্বীয় স্বজনের আমানত স্বরুপ রাখা স্বর্ণালংকারসহ সর্বমমোট ৭০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে। এছাড়াও ডাকাত দল ভিকটিমের মামাতো বোনের বিবাহের জন্য ঘরে রাখা নগদ ০৫ লক্ষ টাকা, উন্নতমানের ০৫ মোবাইল এবং ০১টি স্যামসাং ব্রান্ডের ট্যাব লুট করে।

এঘটনার পর গৃহকর্তা মোহাম্মদ সরোয়ার চৌধুরী বাদী হয়ে রাউজান থানায় মামলা দায়ের করেন ।